ভূমিকম্প কলাম

ভূমিকম্প সচেতনতায় একটু প্রয়াস

‘ভূমিকম্প কলাম’ এর পেছনের কথা

ছোটবেলায় দেখতাম কোন একটা পড়া নিজে পড়ার পর আরেকজনকে বোঝালে ঠিকমত মাথায় ঢোকে। ‘ভূমিকম্প কলাম’এর শুরুটা এক অর্থে সেরকম একটা কিছু থেকে। আমি বর্তমানে যে প্রজেক্টের সাথে জড়িত, তার জন্য অনেক ধরণের তথ্য বা রিপোর্ট পড়তে হচ্ছে। সেগুলো ঠিকমত বুঝতে পারছি কি না, তা বোঝার জন্য প্রথমে লিখতে শুরু করি। দেখা গেল, আমার বন্ধুরা এবং তাঁদের বন্ধুরা খুব আগ্রহ নিয়ে লেখাগুলো পড়ছেন। তার কারণ হয়ত এই, যে এসব তথ্য নিয়ে বাংলায় খুব একটা লেখা হয় না। আমাদের দেশের সর্বসাধারণের ভাষা এখনও বাংলা। অথচ ভূমিকম্প বা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার ওপর যে রিপোর্টগুলো আছে, হয়ত আন্তর্জাতিক সহায়তায় তৈরী বলেই, অধিকাংশই ইংরেজীতে। আর দৈর্ঘ্যেও তারা স্বাভাবিকভাবেই এত বড়, যে প্রচণ্ড আগ্রহ না থাকলে কেউ হয়ত শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়বে না। আমার ‘পড়া’ ঝালাই করার সুবাদে যদি এরকম দু’একটি তথ্য কিছু লোকের কাছে পৌঁছাতে পারে, আমার চেষ্টার সাফল্য তাতে দ্বিগুণ হয়। তাই সাতপাঁচ না ভেবে অনেকটা হঠাৎ করেই এই ব্লগ তৈরী করা। খুঁটিনাটি ব্যাপারগুলো এখনও ভাবিনি। ভবিষ্যতে একে অন্য কোন রূপ দিতে চাই কি না, তাও এখন ভাবছি না। আপাতত ভাবছি যখন সুযোগ হবে, লিখে যাব।
 
(‘ভূমিকম্প কলাম’ নামটি দিয়েছেন এক বন্ধু ও শুভাকাঙ্ক্ষী। অল্প কথায় দুই শব্দের মধ্যে এর চেয়ে ভাল নাম আমার মাথায় আপাতত আসছে না।)